১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ সকাল ৬:০৭ শনিবার
  1. আন্তর্জাতিক
  2. কমলনগর উপজেলা
  3. কিশোরগঞ্জ জেলা
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম জেলা
  6. জাতীয়
  7. তথ্য-প্রযুক্তি
  8. নারী ও শিশু
  9. নেত্রকোনা জেলা
  10. নোয়াখালী জেলা
  11. ফেনী জেলা
  12. বিনোদন
  13. ভোলা জেলা
  14. ময়মনসিংহ জেলা
  15. রাজনীতি

কুলিয়ারচরে ধর্ষিতার কোলে ৮ মাসের শিশু

প্রতিবেদক
মোহাম্মদ রাসেল পাটওয়ারী
মার্চ ২৩, ২০২২ ২:১১ অপরাহ্ণ

মো. নাঈমুজ্জামান নাঈম, কুলিয়ারচর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে এক ধর্ষিতার কোল জুড়ে আট মাসের একটি শিশু। পিতৃপরিচয় নেই। ন্যায় বিচারের আশায় বিচারকদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে ধর্ষিতা মা। তার বাড়ি কুলিয়ারচর পৌর এলাকার আদমখাঁরকান্দি মহল্লায়। নিরুপায় হয়ে নিজের ও শিশুর লালন-পালনের খরচ জোগাতে ভিক্ষা করছেন তিনি। নির্মম এ ঘটনাটি ঘটেছে কুলিয়ারচর পৌর এলাকার আদম খাঁর কান্দি মহল্লায়। নিরাপত্তা এবং আইনি জটিলতায় কারণে নাম দেয়া গেল না । তার বয়স ২৭ বছর ।

ধর্ষিতা সাম্প্রতিক স্বদেশকে জানান, দশ বছর আগে কুলিয়ারচর পৌর এলাকার আদমখাঁর কান্দি গ্রামের সবুজ মিয়াকে বিয়ে করেন। বিয়ের পাঁচ বছরে দুটি মেয়ে সন্তানের মা হন তিনি। হঠাৎ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান সবুজ (স্বামী)। স্বামীকে হারিয়ে দুই সন্তানকে নিয়ে সংসারের খরচ চালানো অসম্ভব হয়ে পড়ে তার। পরে দুটি সন্তানকেই নিকটস্থ এতিমখানায় দিয়ে দেন। এদিকে স্বামী মারা যাওয়ার সাড়ে তিন বছর পর গর্ভবতী হন তিনি। এ ঘটনায় এলাকায় গুঞ্জন শুরু হয়ে যায় ।

ধর্ষিতা বলেন, আমাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে আমার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করে পাশের বাড়ির রবিন। সেই সম্পর্কে আমার গর্ভে যখন বাচ্চা আসলো, তখন বিয়ের কথা বলতেই আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় এবং এ ঘটনা অস্বীকার করেন রবিন ।

কীভাবে পেটে বাচ্চা এলো, আর এ বাচ্চার বাবা কে? বাচ্চার প্রকৃত পরিচয় দিতে মৃত স্বামীর মা কে নিয়ে দরবার ডাকা হয়। কিন্তু দরিদ্র হওয়ায়, শক্তি না থাকায় দরবারে মেলেনি বিচার। এই ঘটনার পর আমার পরিবারও আমাকে জায়গা দিচ্ছে না। বাধ্য হয়েই এখন শিশু ও নিজের খরচ জোগাতে ভিক্ষা করছি। আমি শিশুটির পিতৃ পরিচয় চাই।

তবে ধর্ষিতার অভিযোগের ভিত্তিতে পার্শ্ববর্তী বাড়ির আদমখাঁর কান্দি গ্রামের শামছুল হকের ছেলে অভিযুক্ত রবিন (২৭) এর সাথে এই বিষয়ে কথা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য শালিস দরবার হয়েছে। এতে শালিসিয়ান ও দরবারিরা জানেন এই মহিলার সাথে আমার কোনো সম্পর্ক নেই।

তবে এখন কেন ধর্ষিতা আপনার নাম বলছেন তা জানতে চাইলে রবিন বলেন, এটা আমি জানি না কেনো বলছে। তবে তার সাথে আমার কোনো সম্পর্ক ছিলো না, আমি বিবাহিত, আমার সন্তানও আছে । আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পুর্ণ মিথ্যে ।

এই বিষয়ে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মো. জামাল উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় দরবারে আমিসহ সাবেক কাউন্সিলর, মানবাধিকার কর্মী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলাম। দরবার চলাকালীন সময় অন্য একটি ছেলে এসে স্বীকার করেন এ ঘটনায় সে জড়িত। এমনটি হওয়ার ফলে দরবার এলোমেলো হয়ে গেলে আর কোনো দেয়া সিদ্ধান্ত দিতে পারেননি বা পরবর্তীতে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কিনা তাও তিনি জানেন না ।

এঘটনায় কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা বলেন, বিষয়টি আমাদের সম্পূর্ণ অজানা। আপনার মাধ্যমেই অবগত হলাম। এই বিষয়ে আমাদের কাছে লিখিত বা মৌখিক কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে দ্রুততার সাথে এর যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please follow and like us:
error0
Tweet 20
fb-share-icon20

সর্বশেষ - কমলনগর উপজেলা